Back to Organic Food
Sale!

গরুর টানা কাঠের ঘানি সরিষার তেল

350৳  300৳ 

প্রতি কেজি= ৩০০ টাকা

অনেকেই ঘানি সরিষার তেল বলে ২০০-২৫০ টাকায় বিক্রি করছে কিন্তু তারা বলছে না সেটা মেশিনের তেল।কাঠের ঘানি তেল বলে আপনাদের বোকা বানাচ্ছে।গরুর টানা আর মেশিনের ঘানি তেল কোন দিন এক হবে না!!

Description

কলুরা ঘানিতে সরিষা, তিসি, সয়াবিন, সূর্যমুখী, ভেন্না, শুকনো নারিকেল প্রভৃতি উপাদান … তিন রকমের তেল নিষ্কাশনের ঘানি আছে, যেমন: দুই বলদে টানা, নালিবিহীন, কাঠের তৈরি ঘানি; এক … এক বলদওয়ালা কলুরা গরুর চোখে ঠুলি বাঁধে।

 

কলু তেলবীজ থেকে ভোজ্য তেল উৎপাদনে নিয়োজিত পেশাজীবী সম্প্রদায়। দক্ষিণ এশিয়ায় বহুদিন আগে থেকে ভোজ্য তেলের ব্যবহার চালু আছে। দু হাজার তিনশ বছর আগে পুন্ড্রবর্ধন এ এক ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ হয়। দুর্ভিক্ষ মোকাবেলার জন্য মৌর্য সম্রাট রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে ধান, তিল ও সরিষা পুন্ড্রনগরের জনসাধারণকে সরবরাহ করার জন্য স্থানীয় শাসনকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। এ থেকে তেলের ব্যবহারের প্রমাণ পাওয়া যায়। ‘কলু’ শব্দটি দেশজ।

হিন্দিতে বলে কোলহু। পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম ও নদীয়া জেলা এবং বাংলাদেশের নাটোর অঞ্চলে কলুকে খলু বলা হয়। কলু শব্দটির আভিধানিক অর্থ হচ্ছে ‘তৈল ব্যবসায়ী হিন্দু ও মুসলিম জাতি বিশেষ’। তেলের সঙ্গেই এদের সম্পর্ক। আমাদের দেশের প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী কলু ও তেলি (তেলি, তিলি, তিলী, তৈলিক ইত্যাদি বানানও প্রচলিত) মূলত একই অর্থে ব্যবহূত হয়। কলুরা ঘানিতে সরিষা, তিসি, সয়াবিন, সরগুজা (গুজি), সূর্যমুখী, ভেন্না, শুকনো নারিকেল ও মান্দার তুলাবীচি ইত্যাদি ভাঙ্গিয়ে অর্থাৎ পিষে তেল নিষ্কাশন করত। তেলিরা ওই তেল বিক্রয় করত। তবে অতীতের মতো আজও সাধারণত দেখা যায়, যারা কলু তারাই মূলত তেল বিক্রেতা। একই ব্যক্তি বা একই পরিবার উভয় কাজই করে। বাংলাদেশে বর্তমানে কাঠের ও যান্ত্রিক ঘানিতে বা কলে সব রকমের তেল উৎপাদন বা নিষ্কাশন করা হয়।

Additional information

Weight 1 kg
প্রতি কেজি

প্রতি কেজি

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “গরুর টানা কাঠের ঘানি সরিষার তেল”

Your email address will not be published. Required fields are marked *