29Mar
2017
0

রেসিপিঃ মিক্স সবজি আলু ভাঁজি


আপনার প্রয়োজনীয় সবজি গুলো কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। এই রান্নায় আমরা আলু, বেগুন, গাঁজর, কুমড়া ইত্যাদি ব্যবহার করেছি, বিশেষ করে সকালের নাস্তায় রুটি বা পরোটার সাথে বেশ জমিয়ে খাওয়া যাবে! আমাদের দেশের সাধারন মানের হোটেল গুলোতেও এমনি সকালের নাস্তার জন্য সবজি ভাঁজি বা রান্না করা হয়ে থাকে। চলুন, দেখে ফেলি!
উপকরন ও পরিমানঃ
– সবজি মিক্সঃ আলু, পটল, বেগুন, কুমড়া, গাঁজর ইত্যাদি (তবে বেগুনটা মাষ্ট, এতে ভাঁজি খেতে সুস্বাদু হয় বেশী)
– পেঁয়াজ কুঁচিঃ মাঝারি কয়েকটা (বেরেস্তা করে নিতে হবে আগে)
– পাঁচ ফোড়নঃ এক চা চামচ
– আদা বাটাঃ এক চা চামচ
– গুড়া মরিচঃ হাফ চা চামচ (ঝাল বুঝে)
– হলুদ গুড়াঃ হাফ চা চামচ বা কম
– কাঁচা মরিচঃ কয়েকটা
– চিনিঃ হাফ চা চামচ
– লবনঃ পরিমান মত (বুঝে শুনে)
– তেলঃ ৬/৭ টেবিল চামচ
– পানিঃ হাফ কাপ বা কম
– ধনিয়া পাতার কুচিঃ ৩/৪ টেবিল চামচ (যদি হয় ভাল, না থাকলে নাই, আমরা দেই নাই ছিল না)
প্রনালীঃ (ছবি কথা বলে)

ছবি ১, তেলে পেঁয়াজ কুঁচি ভেঁজে তুলে রাখুন।

ছবি ২, রান্নার শেষে কাজে লাগবে।
মুল রান্নাঃ

ছবি ৩, সেই তেলে পাঁচ ফোড়ন দিন ভাঁজুন।

ছবি ৪, আদা ও সামান্য লবন দিন, ভাল করে ভেঁজে নিন।

ছবি ৫, এবার সবজি গুলো দিয়ে দিন।

ছবি ৬, মরিচ গুড়া ও হলুদ গুড়া দিন।

ছবি ৭, মিশিয়ে নিন। আগুন মাধ্যম আঁচে রাখুন।

ছবি ৮, সামান্য পানি দিন।

ছবি ৯, ব্যস!

ছবি ১০, এবার একটা ঢাকনা দিয়ে মিনিট ১০ মাঝারি আঁচে রাখুন।

ছবি ১১, মাঝে একবার নাড়িয়ে দিন।

ছবি ১২, আলু নরম হল কি না দেখুন।

ছবি ১৩, না হলে আরো কিছু সময় মাঝারি আঁচে রাখুন।

ছবি ১৪, এবার চিনি দিন।

ছবি ১৫, একটা ঘুটনি দিয়ে হালকা করে আলু গাঁজর ভেঙ্গে দিন, বেশি না সামান্য।

ছবি ১৬, আগুন এবার বাড়িয়ে দিন।

ছবি ১৭, বেরেস্তা ছিটিয়ে দিন।

ছবি ১৮, ফাইন্যাল লবন দেখুন। লাগলে দিন না লাগলে আগে বাড়ুন। ঝোল কমিয়ে গেলেই চুলা বন্ধ করে দিন।

ছবি ১৯, আপনার ইচ্ছা মত নিয়ে নিন।

ছবি ২০, পরোটা বা রুটির সাথে চলুক!
সবাইকে শুভেচ্ছা।

No Comments

Reply